ঢাকা, সোমবার, মে ২১, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

জাতীয় সংবাদ : বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ কক্ষপথের অবস্থানে পৌঁছেছে * মুক্তিযোদ্ধার অসম্মানজনক দাফনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : মোজাম্মেল হক * ৭১তম বিশ্ব স্বাস্থ্য সম্মেলন শুরু   |   শিক্ষা : জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স পরীক্ষার ফরম পূরণ ২৩ মে শুরু   |   প্রধানমন্ত্রী : যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, এতিম ও আলেম-ওলামাদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ইফতার * এইচবিআরআই খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন   |    জাতীয় সংবাদ : রাজীবের পরিবারকে কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ : আপিলের আদেশ কাল * খালেদা জিয়ার মুক্তির সঙ্গে আগামী জাতীয় নির্বাচনের কোন সম্পর্ক নেই : ড. হাছান মাহমুদ * বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন যেকোনো দেশের জন্যই অনুসরণীয় : মুহিত   |   আবহাওয়া : নৌবন্দরসমূহে এক নম্বর সতর্কতা সংকেত   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ভারতের দক্ষিণাঞ্চলে নিপা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৯ জনের মৃত্যু * পুতিনের সাথে অনানুষ্ঠানিক বৈঠকের জন্য রাশিয়া সফরে মোদি * মাদুরো বিরোধীদের উচিত নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করা : ভেনিজুয়েলার বিরোধীদল * বাস-ট্রাকে সংঘর্ষে মধ্যপ্রদেশে নিহত ৯   |   খেলাধুলার সংবাদ : রোম মাস্টার্সের অষ্টম শিরোপা জিতে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ফিরলেন নাদাল * চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালের জন্য রিয়াল প্রস্তুত : জিদান   |   

আবুল কালাম আজাদ

ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক

বিশিষ্ট সাংবাদিক আবুল কালাম আজাদ বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস)’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক পদে সচিব পদমর্যাদায় তিন বছরের জন্য ৩ ফেব্রুয়রি, ২০১৪ তারিখে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগপ্রাপ্ত হন। মেয়াদ শেষে আরও তিন বছরের জন্য অর্থাৎ ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তাকে পুনঃনিয়োগ দেয়া হয়৤

আবুল কালাম আজাদ ২০০৯ সাল হতে জানুয়ারি, ২০১৪ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রেস সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে তিনি ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দুতাবাসে প্রেস মিনিস্টার ছিলেন।

২০০২ সালে দেশে ফিরে তিনি আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সংসদে তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা শেখ হাসিনার প্রেস সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। একটানা এই দায়িত্ব পালন শেষে ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পরপরই তাকে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব নিযুক্ত করা হয়৤

আবুল কালাম আজাদ ১৯৭৩ সালে দৈনিক ইত্তেফাকে তার সাংবাদিকতা জীবন শুরু করেন। দেশের এই প্রধান বাংলা দৈনিক পত্রিকায় তিনি দীর্ঘদিন গুরুত্বপূর্ণ পেশাগত দায়িত্ব পালন করেন। একই সময়ে তিনি সাংবাদিকতা পেশার উৎকর্ষ ও মর্যাদা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখেন। সাংবাদিকতা জীবনে তিনি বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি, মহাসচিব ও কোষাধ্যক্ষ এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক ছিলেন। তিনি সাংবাদিক-কর্মচারিদের জন্য গঠিত পঞ্চম ওয়েজ বোর্ডেরও সদস্য ছিলেন।

আবুল কালাম আজাদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য ছিলেন৤ তিনি প্রেস ইন্সটিটিউট অব বাংলাদেশ (পিআইবি)-’র পরিচালনা বোর্ডের, চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের এবং বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের সদস্য ছিলেন।

ঢাকা বিশ্বদ্যিালয়ের সাবেক ছাত্র আবুল কালাম আজাদ মস্কো থেকে উন্নয়ন সাংবাদিকতা বিষয়ে ডিপ্লোমা ডিগ্রী লাভ করেন। শিক্ষাজীবনে তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন। এছাড়াও তিনি ১৯৬৯ সালের ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থানের সময়ে গঠিত সর্বদলীয় ছাত্রসংগ্রাম পরিষদের ঢাকা বিভাগীয় কোষাধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি বর্তমানে বঙ্গবন্ধু পরিষদের জাতীয় কমিটির সদস্য এবং এ সংগঠনের মুন্সিগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি। তিনি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথেও যুক্ত রয়েছেন।