ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জুন ২৯, ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম 

জাতীয় সংবাদ : ভিশন ২০২১ অর্জনের ক্ষেত্রে এই বাজেট মাইলফলক: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী *নিয়ম মেনেই যৌথ প্রযোজনায় নবাব ওবস- মুক্তি দেয়া হয়েছে: প্রেসনোট *   |   জাতীয় সংসদ : জঙ্গি দমনে জিরো টলারেন্স নীতি আজ রোল মডেল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে : প্রধানমন্ত্রী * বাজেট বাস্তবায়নে সক্ষমতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ এরশাদের * বাংলাদেশ মাথাপিছু জাতীয় আয় এবং অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা সূচকে প্রারম্ভ রেখা অতিক্রম করেছে : প্রধানমন্ত্রী   |   শিক্ষা : কারিগরি শিক্ষাই হবে দেশের ভবিষ্যৎ নির্মাণের মূল শক্তি : শিক্ষামন্ত্রী   |    বিভাগীয় সংবাদ : গোপালগঞ্জে পিক-আপ উল্টে নিহত-১, আহত-৮ *নবীগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় মা ও ছেলের মর্মান্তিক মৃত্যু   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : ভেনিজুয়েলায় সুপ্রিম কোর্টে হেলিকপ্টার হামলা *জাতিসংঘের রিফিউজি ক্যাশ কার্ড : বদলে দিচ্ছে লেবাননের মুদি দোকানীদের ভাগ্য * অস্ট্রেলিয়ায় বিমান বিধ্বস্ত : নিহত ৩ * ভেনিজুয়েলার সুপ্রিম কোর্টে হেলিকপ্টার দিয়ে হামলা, সতর্কাবস্থায় সেনাবাহিনী    |    জাতীয় সংবাদ : ঈদের সময় হাসপাতালেগুলোতে চিকিৎসা সেবার কোনো বিঘ্ন ঘটেনি : স্বাস্থ্যমন্ত্রী *শেখ হাসিনার সরকার সহায়ক সরকারের ভূমিকা পালন করবে : ওবায়দুল কাদের *বিশিষ্ট সঙ্গীতজ্ঞ সুধীন দাস আর নেই ॥ রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক    |   খেলাধুলার সংবাদ : ক্রীড়ামন্ত্রীকে বাদর বলে কটাক্ষ করায় এক বছর নিষিদ্ধ হলেন মালিঙ্গা   |   

কঙ্গোতে মিলিশিয়া প্রধানকে হত্যার জেরে সংঘর্ষে ২৬ হত

কিনশাসা, ১২ জানুয়ারি ২০১৭ (বাসস) : গণপ্রজাতন্ত্রী কঙ্গোতে এক উপজাতীয় প্রধানকে হত্যার জেরে তার সমর্থক ও নিরাপত্তা বাহিনীর মধ্যে নতুন বছরের শুরু থেকে দফায় দফায় সংঘর্ষে ২ ডজনের বেশি লোক নিহত হয়েছে।
স্থানীয় এক গভর্নর এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন।
কেন্দ্রীয় কাসাই প্রদেশের গভর্নর আলেক্স কান্দে এক বিবৃতিতে বলেন, ২০১৭ সালের শুরু থেকে এ পর্যন্ত ৪ বেসামরিক নাগরিক, নিরাপত্তা বাহিনীর ৯ সদস্য ও ১২ মিলিশিয়া যোদ্ধাসহ ২৬ জন নিহত হয়েছে।
কান্দে বলেন, নিহতদের মধ্যে এক মিলিশিয়া নেতার স্ত্রীও রয়েছেন।
জাতিসংঘের হিসেব মতে, গত মধ্য আগস্টে উপজাতীয় নেতা কামউইনা সাঁপুর মৃত্যুর পর থেকে এ পর্যন্ত অন্তত ১৪০ জন লোক বিভিন্ন সংঘর্ষে নিহত হয়েছে।
গত সপ্তাহে এক বিবৃতিতে জাতিসংঘ বলেছে, কঙ্গোর পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি হচ্ছে।
গভর্নর কান্দে এক বিবৃতিতে বলেন, কামউইনা সাঁপুর আন্দোলন সম্পূর্ণ অরাজতকা থেকে ভয়াবহ গেরিলা বাহিনীতে রূপ নিয়েছে।
গভর্নর অভিযোগ করেন, কামউইনা সাঁপুর সমর্থকরা তাদের সরকার বিরোধী লড়াইয়ে জোর করে অপ্রাপ্ত বয়স্কদের সম্পৃক্ত করছে এবং নারী ও শিশুদের মানবঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে।
কামউইনা সাঁপু অনলাইনে এক অডিও বার্তায় প্রথমবারের মতো কঙ্গো মুক্ত করার আহবান জানানোর পর পরই গত বছর ১২ আগস্ট এক পুলিশী অভিযানে নিহত হন।
প্রেসিডেন্ট জোসেফ কাবিলা পদত্যাগ করতে অস্বীকৃতি জানানোর পর থেকে ডিআর কঙ্গোর বেশ কয়েক মাস ধরে রাজনৈতিক সংকটে পড়েছে।
তবে দেশটির বিশাল জনগোষ্ঠী কাবিলার শাসনের সাথে সংশ্লিষ্ট নয় এমন অসন্তোষের কারণে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। দেশটি কয়েকটি অংশে জাতিগত ও ধর্মীয় সংঘাত চলছে।

সম্পর্কিত সংবাদ