ঢাকা, রবিবার, জানুয়ারী ২২, ২০১৭

সংবাদ শিরোনাম 

জাতীয় সংসদ : সংসদ অধিবেশন শুরু * সংসদের চতুর্দশ অধিবেশন ৯ মার্চ পর্যন্ত চালানোর সিদ্ধান্ত * সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে শোক প্রস্তাব গৃহীত    |    জাতীয় সংবাদ : ইসির সার্চ কমিটি গঠনে বিএনপি তাদের দলীয় লোকের নাম প্রস্তাব করেছে : ওবায়দুল কাদের   |   প্রধানমন্ত্রী : শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে ক্রীড়া ও সংস্কৃতি চর্চায় সমান গুরুত্ব প্রদানের আহবান প্রধানমন্ত্রীর    |   খেলাধুলার সংবাদ : গাঙ্গুলি, ডালমিয়ার নামে ইডেনে স্ট্যান্ড *বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হলো তৃতীয় দিনের খেলা *অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের চতুর্থ রাউন্ড থেকে মারের বিদায় *   |   শিক্ষা : মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ওরিয়েন্টেশন ক্লাশ ৪ ফেব্রুয়ারি    |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : মালিতে হামলায় ১৪ সরকারপন্থী মিলিশিয়া নিহত *গণমাধ্যমে অভিষেকে আগতদের সংখ্যা কমিয়ে দেখানো হয়েছে : ট্রাম্পের অভিযোগ *ভারতে ট্রেন দুর্ঘটনা॥ নিহত ৩৬, আহত ১শ *মিয়ানমারে মিনিবাসে আগুন: নিহত ৮, আহত ১ *   |    বিভাগীয় সংবাদ : আরসিসির ৫শ কোটি টাকা ব্যয়ে দুটি আবাসন প্রকল্প গ্রহণ *আখ পাহাড়ি চাষিদের ভাগ্য বদলে দিতে পারে *জয়পুরহাটে ৭৪ লাখ টাকার সেলাই মেশিন বিতরণ *ভোলায় বিদ্যুৎ খাতে ব্যাপক উন্নয়ন   |   আবহাওয়া : বিভিন্ন স্থানে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে   |    জাতীয় সংবাদ : আখেরী মোনাজাতের মধ্যদিয়ে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা সমাপ্ত *নারীর ক্ষমতায়ন বাংলাদেশের সফলতার একটি মাইলফলক : স্পিকার *সাত খুন মামলার ডেথ রেফারেন্সের নথি হাইকোর্টে   |   

পিরোজপুরে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪৩টি বীর নিবাস নির্মাণ

পিরোজপুর, ১২ জানুয়ারি ২০১৭ (বাসস): প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বীর নিবাস তৈরি করে পিরোজপুরে ইতোমধ্যেই ৩৯টি হস্তান্তর করা হয়েছে। ২টি বীর নিবাসের নির্মাণ কাজ চলছে এবং আগামী মাসেই এ কাজ সম্পন্ন হবে। এছাড়া আরও ২টির কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে, যা চলতি ২০১৭ সালে সম্পন্ন হবে বলে জানা গেছে।
ভূমিহীন ও অস্বচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বাসস্থান নির্মাণের লক্ষ্যে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর সারাদেশে ২ হাজার ৯শত ৭১টি বাসগৃহ নির্মাণ কাজ শুরু করেছে। এ বাসভবন নির্মাণের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ২শত ৭১ কোটি ১৩ লক্ষ টাকা। এরই ধারাবাহিকতায় পিরোজপুরে ৪৩টি বীর নিবাস নির্মাণের কাজ শুরু হয়। পিরোজপুরের প্রতিটি বীর নিবাস ভবন নির্মাণে ৯ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকা করে ৪৩টির জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয় ৩ কোটি ২ লক্ষ টাকা। পিরোজপুর সদরে ৭টি ভান্ডারিয়ায় ৬টি, কাউখালীতে ৪টি, নাজিরপুরে ৭টি, নেছারাবাদে ৭টি, মঠবাড়িয়ায় ৮টি এবং ইন্দুরকানীতে ২টি বীর নিবাস এর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হওয়ায় ইতোমধ্যেই তা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে এবং তারা এ বীর নিবাসে বসবাস শুরু করেছেন। প্রতিটি এক-তলাবিশিষ্ট বাসস্থানে ৩টি কক্ষ রয়েছে। বারান্দাসহ আলাদা বাথরুম, গবাদি পশু ও হাসমুরগী পালনের জন্য সেড নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া প্রতিটি বীর নিবাসে একটি করে টিউবওয়েল বসানো হয়েছে।
পিরোজপুরের এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রফিকুল হাসান বাসসকে জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা পুনঃপ্রতিষ্ঠা এবং তা প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরের জেলা উপজেলাসহ দেশের প্রত্যন্ত এলাকা পর্যন্ত ছড়িয়ে দিতে চান বলেই অস্বচ্ছল ও ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বীর নিবাস তৈরির পাশাপাশি প্রতিটি উপজেলায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণের নির্দেশ দিয়েছেন এবং এলজিইডি এই নির্দেশনা অনুযায়ী ভবন নির্মাণ করছে।
পিরোজপুর সদর উপজেলার টোনা ইউনিয়নের পান্তাডুবি গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মান্নান দরানী জানান, মুক্তিযুদ্ধের সময় তার বসত ঘরটি রাজাকার আলবদর ও পাকবাহিনী পুড়িয়ে দেয়। কখনও পাকা ভবন তৈরি করে বসবাস করতে পারবেন- তিনি আশা করেননি। বর্তমান সরকার একটি পাকা ভবন তৈরি করে তাকে বসবাসের সুযোগ করে দেওয়ায় তিনি অভিভূত হয়েছেন।