ঢাকা, শনিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

খেলাধুলার সংবাদ : ইংল্যান্ডের নির্বাচক হিসেবে নিয়োগ পেলেন সাবেক ব্যাটসম্যান স্মিথ *ওয়েস্ট ইন্ডিজ, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলবে না ভারত * ওয়েঙ্গারের উত্তরসূরী হিসেবে পাঁচজনকে বিবেচনা করা হচ্ছে   |   আবহাওয়া : দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে   |    বিভাগীয় সংবাদ : মেহেরপুরের মোমিনুলের আর্সেনিকমুক্ত প্লান্ট আবিস্কার *পিরোজপুর আধুনিক কারাগারের নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলছে    |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : উ. কোরিয়ার প্রতিশ্রুতিতে সন্তুষ্ট নয় জাপান *সিনেট প্যানেলে প্রত্যাখ্যাত হতে পারেন পম্পেও * অশালীন ভিডিও : সৌদি আরবে বন্ধ করে দেয়া হলো নারী শরীরচর্চা কেন্দ্র *পারমাণবিক অস্ত্র নিরস্ত্রীকরণ প্রশ্নে ইতিবাচক পদক্ষেপ উ.কোরিয়ার   |   

জয় দিয়ে শুরু হলো বাংলাদেশের যুব বিশ্বকাপ

লিংকন (Lincoln), নিউজিল্যান্ড, ১৩ জানুয়ারি ২০১৮ (বাসস/এএফপি) : দুর্দান্ত এক জয় দিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ১২তম আসরে যাত্রা শুরু করলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী দিন সি গ্রুপে বৃষ্টি বিঘিত ম্যাচে বাংলাদেশ ৮৭ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে নামিবিয়াকে। বৃষ্টির কারণে ৫০ ওভারের ম্যাচটি নির্ধারিত হয় ২০ ওভারে। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৯০ রানের বড় সংগ্রহ পায় বাংলাদেশের যুবারা। জবাবে ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১০৩ রান করতে সমর্থ হয় নামিবিয়া। দিনের অন্য ম্যাচে আফগানিস্তান ৫ উইকেটে পাকিস্তানকে, জিম্বাবুয়ে ১০ উইকেটে পাপুয়া নিউ গিনিকে এবং স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড ৮ উইকেটে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে।
লিংকনে টস হেরে প্রথম ব্যাট হাতে মারমুখী মেজাজে শুরু করে বাংলাদেশের যুবারা। ৪ ওভারে ৩৩ রান যোগ করেন দুই ওপেনার পিনাক ঘোষ ও মোহাম্মদ নাইম। ৪টি চারে ১৭ বলে ২৬ রান করে ফিরেন পিনাক।
পিনাকের বিদায়টা আমলে নেননি নাইম ও তিন নম্বরে নামা অধিনায়ক সাইফ হোসেন। নামিবিয়ার বোলারদের বিপক্ষে নিজেদের মারমুখী মেজাজ অব্যাহত রাখেন নাইম ও সাইফ। এতে ১২ ওভারেই শতরানের কোটা স্পর্শ করে বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত এই জুটি বিচ্ছিন্ন হন ১৬তম ওভারের তৃতীয় বলে। এসময় বাংলাদেশের রান ১৩০। ৮টি চার ও ১টি ছক্কায় ৪৩ বলে ৬০ রান তুলে আউট হন নাইম।
তবে অন্য প্রান্তে ব্যাট হাতে অবিচল ছিলেন সাইফ। চার নম্বরে নামা আফিফ হোসেন খুব বেশিক্ষণ সাইফকে সঙ্গ দিতে পারেননি। ১২ বলে ১১ রান করে ফিরেন তিনি। তবে সাইফের বিধ্বংসী ব্যাটিং ছিলো শেষ পর্যন্ত। ইনিংসের শেষ বলে আউট হবার আগে ৪৮ বলে ৮৪ রান করেন সাইফ। তার ইনিংসে ৩টি চার ও ৫টি ছক্কা ছিলো। সাইফের ব্যাটিং দৃঢ়তায় ৪ উইকেটে ১৯০ রানের বড় সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ।
বাংলাদেশের ছুড়ে দেয়া ১৯১ রানের জবাব দিতে নেমে শুরুতেই বিপদে পড়ে নামিবিয়া। স্কোর বোর্ডে ১২ রান উঠতেই ৪ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। এরপর দলের হাল ধরেন নামিবিয়ার মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান এবিন ভ্যান উইক। ৫২ বলে ৫৫ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। কিন্তু অন্য কোন ব্যাটসম্যান বড় ইনিংস খেলতে না পারলে ৬ উইকেটে ১০৩ রানের বেশি করতে পারেনি নামিবিয়া। বাংলাদেশের দুই পেসার কাজি অনিক ও হাসান মাহমুদ ২টি করে উইকেট নেন। এছাড়া তৌহিদ হৃদয় ১টি করে উইকেট নেন। ম্যাচের সেরা হন বাংলাদেশের অধিনায়ক সাইফ হাসান।
আগামী ১৫ জানুয়ারি কানাডার বিপক্ষে গ্রুপ পর্বে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশের যুবারা।
বাংলাদেশ-নামিবিয়ার ম্যাচটি ছিলো উদ্বোধনী দিনের তৃতীয় ম্যাচ। ডি গ্রুপের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়ে চমক দেখিয়েছে আফগানিস্তান। টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় পাকিস্তান। আফগান বোলারদের নৈপুন্যে ১৪ বল হাতে রেখেই ১৮৮ রানেই গুটিয়ে যায় পাকিস্তান। দলের পক্ষে ওপেনার ও উইকেটরক্ষক রোহাইল নাজির ৮১, আলি জারইয়াব আসিফ ৩০ ও মোহাম্মদ তাহা ১৭ রান করেন। আফগানিস্তানের আজমতুল্লাহ ওমারজাই ও কাইস আহমেদ ৩টি করে উইকেট নেন।
জবাবে ডান-হাতি ব্যাটসম্যান ডারউইশ রাসোলির ৭৮ বলে অপরাজিত ৭৬ রানের কল্যাণে ১৫ বল বাকি রেখেই ম্যাচ জিতে নেয় আফগানিস্তান। ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান ম্যাচের সেরা রাসোলি। এছাড়া উইকেটরক্ষক ইকরাম আলি খিল ৪৬ ও রহমনুল্লাহ গুরবাজ ৩১ রান করেন।
দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে বি গ্রুপে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং-এ নেমে ৯৫ রানেই গুটিয়ে যায় পাপুয়া নিউগিনি। ১৪ ওভারে বিনা উইকেটে সেই রান টপকে যায় জিম্বাবুয়ে।
দিনের চতুর্থ ম্যাচটি ছিলো দুটি বড় দলের। এ গ্রুপে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং-এ নামে নিউজিল্যান্ড। স্বাগতিক বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং-এ ৮ উইকেটে ২৩৩ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দুই ওপেনার নৈপুণ্যেই লড়াই করার পুঁিজ পায় ক্যারিবীয়রা। কারণ উদ্বোধনী জুটিতে ১২৩ রান যোগ করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই ওপেনার কিগান সিমন্স ও কিমানি মিলিয়াস। তাদের পর পরের দিকে আর কোন বড় জুটিই গড়তে পারেনি দলের ব্যাটসম্যানরা। মিলিয়াস ৭৮ রানে ফিরলেও ১৩২ বলে ৯২ রানে অপরাজিত থাকেন সিমন্স।
জবাবে ফিন অ্যালেনের ১০০ বলে অপরাজিত ১১৫ ও জ্যাকব ভুলার ৮৩ রানে ৬৩ বল হাতে এবারের বিশ্বকাপে শুভ সূচনা করে নিউজিল্যান্ড।