ঢাকা, সোমবার, জানুয়ারী ২২, ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম 

শিক্ষা : ঢাবি সিনেটে ২৫জন রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ   |   জাতীয় সংসদ : কৃষি কাজে ভূ-গর্ভস্থ পানি ব্যবস্থাপনা বিল-২০১৮ সংসদে পাস * সরকার ১৭৮টি নদী খনন করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে : শাজাহান খান * প্রত্যেক বিভাগীয় শহরে বিশেষায়িত হৃদরোগ হাসপাতাল স্থাপন করা হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী   |    জাতীয় সংবাদ : সরকারের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে : তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা * ঢাকা ইউএইকে আরো বাংলাদেশী শ্রমিক নিয়োগের আহ্বান জানাবে * বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে এডিবি বৃহৎ অংশীদার : খন্দকার মোশাররফ * আগামীকাল সরস্বতী পূজা   |    অর্থনীতি : দাম বেড়েছে ১৬৮টির, কমেছে ১১৩টির এবং অপরিবর্তিত ৫৪ কোম্পানির শেয়ার * রাশিয়ায় তৈরি পোশাক রপ্তানিতে ডিউটি ও কোটা ফ্রি সুবিধা চাইলেন বাণিজ্যমন্ত্রী   |   প্রধানমন্ত্রী : জ্ঞানার্জনে ব্রতী হয়ে দেশ গঠনে আত্মনিয়োগের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর * এস এম আতিউর রহমানের ইন্তেকালে প্রধানমন্ত্রীর শোক * ভূমির মালিকানা পার্বত্য চট্টগ্রামবাসীরই থাকবে : প্রধানমন্ত্রী    |    বিভাগীয় সংবাদ : সরস্বতী পূজা উপলক্ষে জেলার বিভিন্ন স্থানে বসেছে প্রতিমার হাট * মাগুরায় অস্বচ্ছল ও অসুস্থ ব্যক্তির মাঝে অনুদানের চেক বিতরণ * রংপুরকে আধুনিক সিটি কর্পোরেশন হিসেবে গড়ে তুলতে চাই : নবনির্বাচিত মেয়র   |   রাষ্ট্রপতি : শিক্ষাবিদ নুরুল হকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক * সম্প্রীতির ঐতিহ্যকে সুদৃঢ় করতে নিজ-নিজ অবস্থান থেকে অবদান রাখতে হবে : রাষ্ট্রপতি * বঙ্গভবন থেকে রাষ্ট্রপতির আখেরি মোনাজাতে অংশগ্রহণ    |    জাতীয় সংবাদ : নির্বাচন নিয়ে বিএনপি কী রূপরেখা দেয় সেটার অপেক্ষায় আছি : ওবায়দুল কাদের * সহায়ক সরকারের প্রস্তাব বিএনপির চক্রান্তের রাজনীতির অংশ : তথ্যমন্ত্রী * আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা সমাপ্ত   |    আন্তর্জাতিক সংবাদ : আফগানিস্তানে অতর্কিত হামলায় সরকারপন্থী ১৮ মিলিশিয়া নিহত *যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকারের অর্থায়নে সোমবার ভোট *প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পের এক বছর ॥ হাজারো নারীর বিক্ষোভ   |   খেলাধুলার সংবাদ : জিম্বাবুয়েকে ৫ উইকেটে হারালো শ্রীলংকা * জিম্বাবুয়েকে ৫ উইকেটে হারালো শ্রীলংকা *আইপিএলে এলিট তালিকায় সাকিব *অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালে রাফায়েল নাদাল   |   

তামাক ব্যবহারের কারণে বিশ্বে প্রতিবছর এক হাজার কোটি মার্কিন ডলারেরও বেশি ব্যয়

ঢাকা, ১২ জানুয়ারি, ২০১৭ (বাসস) : তামাক ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের কারণে বিশ্বে প্রতিবছর এক হাজার কোটি (এক ট্রিলিয়ন) মার্কিন ডলারেরও বেশি অর্থ ব্যয় হচ্ছে।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল ক্যান্সার ইনিস্টিটিউট (এনসিআই) ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) এক যৌথ প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়।
বিশ্বব্যাপি তামাক বিরোধী প্রচারণার অংশ হিসেবে অতিসম্প্রতি এনসিআই ও ডব্লিউএইচও যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে তামাক সম্পর্কিত বার্ষিক-বিশ্ব প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে।
তামাক ও তামাকজাত দব্য ব্যবহাকারী দেশগুলোর জরিপের তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে প্রকাশিত এবারের প্রতিবেদনে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তামাক বিরোধী প্রচারণার ওপর অগ্রাধিকার দিয়ে বলা হয়, তামাকের বর্জন শুধু জীবনই রক্ষা করে না, বিপুল পরিমাণ অর্থও বাঁচায়।
তামাক ও তামাকজনিত দ্রব্য ব্যবহারের জন্য খরচকৃত অর্থ কোনভাবেই অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান রাখে না বলেও এ প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। এতে আরো বলা হয়, তামাকজাত দ্রব্য সেবনে ধনীদের চেয়েও গরিবরাই বেশি এগিয়ে এবং গরিবদের মধ্যে তামাক সেবনের প্রবণতা আশংকাজনক হারে বাড়ছে।
তামাক ও তামাকজাত পণ্য সেবনজনিত কারণে তামাকের অবাধ ব্যবহারের দেশগুলোতে বছরে গড়ে এক হাজার কোটি মার্কিন ডলারেরও বেশি অর্থ ব্যয় হয়ে থাকে।
এ বিষয়টি তুলে ধরে জনস্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক অগ্রাধিকার প্রতিষ্ঠায় তামাকের বিরুদ্ধে লড়াই কর শীর্ষক প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, তামাক ব্যবহারকারী দেশগুলোতে তামাক-সেবনজনিত কারণে স্বাস্থ্যসেবার পেছনে আরো এক হাজার কোটি মার্কিন ডলারের সম-পরিমাণ অর্থ খরচ করতে হয়।
তামাক ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারের কারণে বাংলাদেশে কি পরিমান অর্থ ব্যয় হচ্ছে পরিসংখ্যান তাৎক্ষণিকভাবে তা জানাতে না পারলেও গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞার নির্বাহী পরিচালক এবিএম জুবায়ের বলেন, বিভিন্ন তথ্যমতে বাংলাদেশে মোট জিডিপির প্রায় তিন শতাংশই তামাক ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহারে ব্যায় হয়। অন্যদিকে বাংলাদেশে তামাক খাত থেকে যে পরিমাণ রাজস্ব আয় হয়, তার দ্বিগুণ ব্যয় হয় তামাকজনিত রোগের চিকিৎসার জন্য।
তামাকজনিত মৃত্যু ও ক্ষয়ক্ষতির চিত্র ভয়াবহ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২০০৪ সালের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে প্রতিবছর তামাকজনিত রোগে মারা যায় ৫৭ হাজার মানুষ, পঙ্গুত্ব বরণ করে আরও ৩ লক্ষ ৮২ হাজার মানুষ।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদন অনুযায়ী আগামী ২০৩০ সাল নাগাদ তামাক ব্যবহারজনিত মৃত্যুর পরিমাণ বছরে ৮০ লাখ ছাড়িয়ে যাবে এবং এ সব মৃত্যুর ৮০ ভাগই বহন করতে হবে বাংলাদেশের মত তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোকে। অন্যদিকে ধোঁয়াবিহীন তামাক ব্যবহারকারীর সংখ্যা শহরের তুলনায় বাংলাদেশের গ্রামীণ সমাজে ৬ শতাংশ বেশি।
ইউনাইটেড ফোরাম এগেইন্সট টোবাকোর সাংগঠনিক সম্পাদক ও ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশএর অধ্যাপক ডা, সোহেল রেজা চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশে ৪৩ শতাংশ অর্থাৎ প্রায় ৪ কোটি ১৩ লক্ষ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ তামাক সেবন করেন, যার মধ্যে ২৩ভাগ (২ কোটি ১৯ লক্ষ) ধূমপানের মাধ্যমে তামাক ব্যবহার করেন এবং ২৭ দশমিক ২ভাগ (২ কোটি ৫৯ লক্ষ) ধোঁয়াবিহীন তামাক ব্যবহার করেন। তিনি বলেন, গবেষণায় দেখা গেছে ধোঁয়াবিহীন তামাক ব্যবহারের হার নারীদের মধ্যে অনেক বেশি। বাংলাদেশে ১৩ থেকে ১৫ বছর বয়সের প্রায় ৭ভাগ (পরিসংখ্যান, ২০১৩) কিশোর-কিশোরী তামাক ব্যবহার করে। এছাড়াও তামাক ব্যবহারজনিত রোগে দেশে প্রতিবছর প্রায় ১ লক্ষ (২০১৩) মানুষ অকাল মৃত্যু বরণ করে।
জানা গেছে ,গত ২০১৪ -১৫ এবং ২০১৫-১৬ অর্থবছরে মার্চ মাস পর্যন্ত তামাক খাত থেকে স্বাস্থ্য উন্নয়ন সারচার্জ বাবদ প্রায় ৬শ কোটি টাকা আদায় হলেও এ সংক্রান্ত ব্যবহার নীতিমালা চূড়ান্ত না হওয়ায় সংগৃহিত অর্থ তামাক বিরোধী কোন কর্মকান্ডে ব্যবহৃত হচ্ছে না।

সম্পর্কিত সংবাদ